Regarding General Insurance

বীমা সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তর:

বীমা একটি চুক্তি। যা দুই পক্ষের মধ্যে একটি আইন সম্মত চুক্তি যা দুপক্ষের মধ্যে সম্পাদিত হয়। এক পক্ষ অন্য পক্ষকে ক্ষতিপূরণ দিবে বলে নিশ্চয়তা দিয়ে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়। অন্যপক্ষ ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট হারে প্রিমিয়াম প্রদানের নিশ্চয়তা দিয়ে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়। প্রথম পক্ষ বীমাকারী এবং দ্বিতীয় পক্ষ বীমাগ্রহীতা।
যেকোন দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বীমা শিল্প অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে। বীমা জনসাধারণের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয় (প্রিমিয়াম) সংগ্রহ করে মূলধন গঠনে সাহায্যে করে। সম্পত্তির ক্ষতিপূরণের নিশ্চয়তা দিয়ে থাকে। এরূপ নিশ্চয়তা পাওয়ার ফলে বীমা গ্রহীতা নিরাপত্তা অনুভব করে এবং কর্মে মনোনিবেশ করতে পারে। ফলশ্রুতিতে, সম্পত্তির উৎপাদন বৃদ্ধি পেলে জাতীয় উৎপাদনও বৃদ্ধি পায় এবং জনসাধারণের জীবন যাত্রার মান উন্নত হয় এবং সামগ্রিকভাবে দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ঘটে।

(১) সম্পদের নিরাপত্তা দেয়।
(২) মূলধন সৃষ্টি করে।
(৩) মানসিক প্রশান্তি দেয়।
(৪) ব্যবসায়ে অর্থ যোগান দেয়।
(৫) মুদ্রা স্ফীতি হ্রাস করে।
(৬) সম্পত্তির নিরাপত্তা বিধান করে।

বীমাকারী প্রতিষ্ঠান বীমা গ্রহীতার নিকট তার সম্পত্তির বীমা চুক্তির আওতায় আনার জন্য প্রথমে প্রস্তাব পত্র পেশ করেন। প্রস্তাব পত্রে উল্লিখিত শর্তগুলি বীমা গ্রহীতা রাজি হলে সম্পদের প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে প্রিমিয়াম হার নির্ধারন করে একটি বিল প্রদান করা হয়।পরবর্তীতে প্রিমিয়াম প্রদানের মাধ্যমে কভার নোট/পলিসি/সার্টিফিকেট ইত্যাদি ইস্যু করা হয়।

বীমা চুক্তিতে বীমাকারী বীমা গ্রহীতাকে ক্ষতিপূরণ বা দাবী পরিশোধের প্রতিশ্রুতির যে প্রতিদান বা অর্থ দিয়ে থাকে তা Insurance Premium.

বীমা গ্রহীতার যে সম্পদের উপর বীমা চুক্তি সম্পন্ন করা হয় উক্ত সম্পদের মোট মূল্যই বীমা অংক।

বীমা আইন অনুসারে বীমার প্রিমিয়াম নির্ধারন করার জন্য বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ট্যারিফে উল্লেখিত প্রিমিয়ামের হার নির্ধারন করা আছে। ট্যারিফের মাধ্যমে প্রিমিয়াম হার নির্ধারন করা হয়।

বীমাকারী ও বীমা গ্রাহকের মধ্যে বীমা কোম্পানী নির্দিষ্ট প্রিমিয়ামের বিনিময়ে কি কি ঝুঁকি গ্রহণ করবে অর্থ্যাৎ বীমা গ্রাহককে কি কি সুবিধা প্রদান করবে, কি কি প্রদান করবে না, কি বিষয়গুলো ঝুঁকির মধ্যে থাকবে না, এ সংক্রান্ত স্কীমই বীমা পরিকল্প।

সম্পদের সম্ভাব্য ঝুঁকি স্থানান্তরের নিমিত্তে বীমাগ্রহিতা ও বীমাকারীর মধ্যে যে চুক্তি সম্পাদিত হয় তা হলো বীমা চুক্তি। বীমা চুক্তির ক্ষেত্রে বীমা গ্রহিতা নিদিষ্ট মেয়াদে প্রিমিয়াম পরিশোধের বিনিময়ে ঝুঁকি স্থানান্তর করে এবং বীমাকারী প্রিমিয়াম গ্রহণের মাধ্যমে নির্দিষ্ট মেয়াদ পর্যন্ত ঝুঁকি গ্রহণ করে। অর্থাৎ কোন সম্ভাব্য দূর্ঘটনার ফলে যদি বীমাগ্রহিতার সম্পদের ক্ষতি হয়, তার ক্ষতিপূরন দেওয়া হয়।

I am text block. Click edit button to change this text. Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit. Ut elit tellus, luctus nec ullamcorper mattis, pulvinar dapibus leo.

বীমা গ্রহণের নিমিত্ত বীমাগ্রহিতা লিখিতভাবে বীমাকারীর নিকট যে আবেদন করে তাই বীমা প্রস্তাব। সাধারণতঃ বীমাকারী প্রতিষ্ঠানের নির্ধারিত ছাপানো কাগজে বীমা প্রস্তাব করা হয়। যেখানে বীমাগ্রহিতার নাম ও ঠিকানা, বীমাগ্রহিতার সম্পদের বীমা অংক, বীমা গ্রহনকারী প্রতিষ্ঠানে প্রকৃত ও সম্পদের পরিমাণ ও প্রকৃতি সম্পর্কে লিপিবব্ধ থাকে।

বীমা চুক্তি করতে বীমা গ্রাহককে যে সব তথ্য দিতে হয় তা হচ্ছে বীমা গ্রহীতার সম্পদের প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা, Total sum insured এবং ঝুকিঁ সমূহের বিস্তারিত বিবরন ইত্যাদি।

বীমা গ্রাহককে সাধারনতঃ
প্রস্তাবপত্রের সকল তথ্য সঠিক ও নির্ভুলভাবে লিপিবদ্ধ হয়েছে কিনা।
বীমা প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সক্ষমতা বা সামর্থ যথেষ্ট কিনা ইত্যাদি।

বীমা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রিমিয়াম আয় থেকে বীমা দাবী, কমিশন, কর্মকর্তাদের বেতন-বোনাস এবং ব্যবস্থাপনা ব্যয় পরিশোধ করার পর উদ্বৃত্ত অর্থ প্রাপ্ত প্রিমিয়াম নিরাপদ ও লাভজনক খাতে বিনিয়োগ করে সম্ভাব্য বীমা গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত প্রিমিয়াম পরিশোধযোগ্য বীমা দাবীর টাকা সময়মত পরিশোধ করতে যেন কোন আর্থিক অসুবিধার সম্মুখীন হতে না হয়, সে জন্য প্রিমিয়াম বিনিয়োগ অপরিহার্য।
জাতীয় অর্থনীতি, সরকারী উন্নয়ন কর্মকান্ড, দেশীয় শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধি এবং উদ্বৃত্ত উৎপাদন রপ্তানীর মাধ্যমে জাতীয় অর্থনৈতিক শক্তি সুদৃঢ় করার জন্য বীমা শিল্পের সংগৃহীত বিপুল প্রিমিয়াম বিনিয়োগ করা আবশ্যক।
বীমা ব্যবসাতে প্রিমিয়াম বিনিয়োগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সুষ্ঠু ও দক্ষতার সাথে বিনিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনার উপর বীমা প্রতিষ্ঠানের সাফল্য অনেকাংশে নির্ভর করে।

এজেন্ট হলো বীমা গ্রহীতা ও বীমাকারীর মধ্যে মধ্যস্থতাকারী বা Mediator.
এজেন্ট এর কাজ হলো একটি নির্দিষ্ট পরিমানের কমিশন প্রত্যাশায় বীমা ব্যবসা আনয়ন করে বীমাকারী এবং বীমা গ্রহীতার মধ্যে একটি সেতু বন্ধন তৈরী করে প্রিমিয়াম এনে দেওয়া।